Wednesday, May 29, 2024

Logo
Loading...
google-add

world consumer rights day: ক্রেতাদের নামে কেন হল আজকের দিনটি? 

Editor | 17:47 PM, Fri Mar 15, 2024

বিশ্ব আজ এক বিশাল বাজার। সারা বছর জুড়েই সব দিনই বিক্রেতার আর বছরের একটি মাত্র বিশেষ দিন হল ক্রেতার। আর সেই দিনটি হল আজ ১৫ মার্চ ‘ওয়ার্ল্ড কনজিউমার রাইটস ডে’  বা বিশ্ব ক্রেতা অধিকার দিবস। বিশ্বের বাজারে সরাসরি হোক বা অনলাইনে প্রতিদিনই হরেক জিনিস কেনাবেচা চলছে। নিয়মিত অবিরাম কিনে চলেছেন ক্রেতারা। কোটি কোটি বিক্রেতা আর তার চেয়েও বেশি ক্রেতা। ফলে এই বিশাল বাজারে দরকার ক্রেতাদের সুরক্ষা কবচ, যাতে তারা না ঠকেন, বঞ্চিত না হন। আর সেই ভাবনা থেকেই তৈরি আজকের বিশেষ দিনটি।

 

১৫ মার্চ দিনটি প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে পালিত হয় ‘ওয়ার্ল্ড কনজিউমার রাইটস ডে’ বা বিশ্ব ক্রেতা অধিকার দিবস হিসেবে। কেনো আজকের দিনটিকেই  ক্রেতাদের বিশেষ দিন ধরা হয়? এর পেছনে রয়েছে একজন বিখ্যাত মানুষের গভীর ভাবনা। আসলে আন্তর্জাতিক ক্রেতা আন্দোলনের একটি ভাবনার বৃহত্তর অংশ হল আজকের দিনটি। ১৯৮৩ সালে এই দিনটির কথা প্রথম ভাবা হয়। আর এই ভাবনার পেছনে যিনি ছিলেন, তিনি হলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি। এই দিনটির পালনের কারণ জানতে হলে একটু পেছিয়ে যেতে হবে। ১৯৬২ সালের ১৫ মার্চ তারিখে প্রেসিডেন্ট কেনেডি মার্কিন কংগ্রেসে এই ক্রেতাদের সুরক্ষা বা অধিকার নিয়ে একটি বক্তব্য রাখেন। বিশ্বের তিনিই একমাত্র নেতা যিনি প্রথম এই বিষয়ে ভাবনা চিন্তা করেছিলেন। তিনিই প্রথম যিনি ক্রেতা বা উপভোক্তাদের অধিকারকে সুরক্ষিত করার কথা মাথায় এনেছিলেন।

 

বর্তমানে ক্রেতারা নিজেদের অধিকার সম্পর্ক ধীরে ধীরে সচেতন হচ্ছে। ইদানিং তারা ক্রেতা সুরক্ষা আইন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন। এখন আর তারা আগের মতো অত অসহায় নয় যে কোনো বিক্রেতার দ্বারা প্রতারিত হলে চুপ করে বসে থাকবেন। এখন ক্রেতারা জানেন, প্রতারিত হলে সুবিচার পাওয়ার একটা জায়গা তাদের আছে। প্রতি বছর বিশ্ব ক্রেতা অধিকার দিবসের একটি থিম থাকে। এ বছর সেই থিমটি হল ‘ফেয়ার অ্যান্ড রেসপন্সিবল এআই ফর কনজিউমার। বর্তমান দুনিয়ায় আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সি বা কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার বেড়েছে এবং এর বিক্রেতারা এই কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তাকে নানাভাবে পণ্য এবং পণ্য বিক্রির পরিষেবায় কাজে লাগাচ্ছে। ফলে এ বছরের থিমের মাধ্যমে যাতে কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার কারণে ক্রেতারা বঞ্চিত বা প্রতারিত না হন সেই বার্তা দেওয়ারই চেষ্টা করা হয়েছে। ভারতেও রয়েছে ক্রেতা সুরক্ষাদের জন্য বিশেষ ভাবনা চিন্তা। ১৯৮৬ সালের ৯ ডিসেম্বর আমাদের দেশেও ক্রেতা সুরক্ষার বিষয়টি ভাবা হয়েছিল। দেশের ক্রেতারা যাতে নিজেদের কথা বলতে পারেন যথাস্থানে সেই বিষয়ে ওই সময়ই ভাবনা চিন্তা করা হয়েছিল। এবং বর্তমানে সরকারি স্তরে সেই ভাবনা আরও এগিয়েছে এবং এদেশে তৈরি হয়েছে ক্রেতা সুরক্ষা আদালত।

google-add
google-add
google-add

সাম্প্রতিক খবর

ভিডিয়ো

google-add

টুকরো খবর

google-add
google-add

স্বাস্থ্য

google-add
google-add