Monday, March 04, 2024

Logo
Loading...
google-add

Pakistan Election: ফাঁকা বুথ, ছয়লাপ সেনা। পাকিস্তানে বন্ধ ফোন ও ইন্টারনেট! এটাই পাকিস্তান বলছে জনতা 

Editor | 12:40 PM, Thu Feb 08, 2024

নিউজ ডেস্ক: একদিন আগেই হয়েছে জোড়া বিষ্ফোরণ। নাশকতার হুমকির মাঝেই বৃহস্পতিবার নির্বাচন শুরু হল পাকিস্তানে। ভারতীয় সময় সকাল ৮ টায় নির্বিঘ্নে শুরু হয় ভোট গ্রহন। তবে বেশিরভাগ ভোট কেন্দ্র বেলা গড়াতেই ফাঁকা। একইসঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হল মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা। নিরাপত্তার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে দাবি পাক প্রশাসনের। যদিও ইমরান খানের দলের অভিযোগ ভোট রিগ করতে যাতে সেনার কোন অসুবিধে না হয় তাঁর জন্যই এই পদক্ষেপ নিয়েছে সেনা।

প্রসঙ্গত পাকিস্তানে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করা দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। প্রত্যকে নির্বাচনের আগে সেনা এহেন পরিস্থিতি সৃষ্টি করে দেয় যাতে কে জিতবে তা আগাম বোঝা যায়। এবার যেমন ইমরান খান ও তাঁর দলের কয়েকহাজার কর্মীকে গ্রেফতার করে নওয়াজ শরীফ ও বিলাওয়াল ভুট্টোর জন্য পথ প্রশস্ত করে দিয়েছে প্রশাসন ও সেনা। এর আগে নওয়াজ শরীফ ও তারও আগে মুশারফকে দেশছাড়া করা হয়েছিল। ফলে কে সিংহাসনে বসবে কাকে ছুঁড়ে ফেলা হবে সেই অদৃশ্য শক্তি দেশের জন্মলগ্ন থেকেই রয়েছে সেনার হাতে। বেশি বেগরবাই করলে মার্শল ল তো আছেই।

প্রসঙ্গত কমনওয়ালথ পর্যবেক্ষক দল ভাড়া করে দেশে এনেছে পাকিস্তান। নিজেরে দেশে ভোট করাতে বিদেশীদের সার্টিফিকেট নিতে হচ্ছে প্রতিবেশীদের। অবশ্য পর্যবেক্ষক দলও তথৈবচ। তারা সকাল সকাল দেশের খাবার খেয়ে জানিয়েছেন “নেট বন্ধ তো কী হয়েছে ভোট দেওয়া বেশি জরুরী”।
এবার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাড়ে ৬ লাখ নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে যাতে তৎক্ষণাৎ সামাল দেওয়া যায় সেই উদ্দেশ্য দেশের রাজধানী ইসলামাবাদে এই সেনা বাহিনী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রায় ১২.৮ কোটি মানুষ বৃহস্পতিবার ভোট দেবেন পাকিস্তানে। সাধারণ নির্বাচনের জন্য ৯,০৭,৬৭৫ গুলি ভোটগ্রহণ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। তিনটি দল পিটিআই, পিএমএন-এল ও পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) মধ্যে এবারের নির্বাচনের লড়াই। নির্বাচনে মোট ৫,১২১ জন প্রার্থী তাদের ভাগ্য নির্ধারণ করছেন। এর মধ্যে ৪৮০৬ জন পুরুষ ও ৩১২ জন মহিলা প্রার্থী।রয়েছে ২ জন তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থীও। অর্থনৈতিক মন্দার সঙ্গে লড়াইয়ের মাঝেই পাকিস্তানে ১২.৮৫ কোটি ভোটার নতুন সরকারকে নির্বাচন করতে চলেছেন। এই ভোটগ্রহণ শেষ হবে বিকাল সাড়ে ৫টায় ।